Saturday, 20 July, 2024

সর্বাধিক পঠিত

মালচিং পদ্ধতিতে করলা চাষ

চাষির প্রশ্নCategory: কৃষি তথ্যমালচিং পদ্ধতিতে করলা চাষ

মালচিং পদ্ধতিতে করলা চাষ কিভাবে করা যায়? মালচিং পদ্ধতিতে করলা চাষ কি কি সতর্কতা অবলম্বন করা উচিত?

1 Answers

মালচিং পদ্ধতি করলা চাষের জন্য একটি কার্যকরী এবং লাভজনক উপায় হতে পারে। মালচিং পদ্ধতিতে মাটি ঢেকে রাখা হয়, যা আগাছা নিয়ন্ত্রণ, মাটির তাপমাত্রা স্থিতিশীল রাখা, এবং মাটির আর্দ্রতা সংরক্ষণে সাহায্য করে।

করলা চাষে মালচিং পদ্ধতি প্রয়োগ করতে নিম্নলিখিত ধাপগুলি অনুসরণ করা যেতে পারে:

১. জমি প্রস্তুতি:

– প্রথমে জমি ভালোভাবে চাষ করতে হবে এবং আগাছা পরিষ্কার করতে হবে।
– মাটিতে প্রয়োজনীয় সার (যেমন জৈব সার বা কম্পোস্ট) মিশিয়ে মাটির উর্বরতা বাড়ানো যায়।

২. মালচের উপাদান নির্বাচন:

– পলিথিন মালচ: কালো বা সিলভার পলিথিন শিট ব্যবহার করা হয়। কালো পলিথিন বেশি ব্যবহৃত হয় কারণ এটি সূর্যের আলো থেকে মাটি রক্ষা করে এবং আগাছা বৃদ্ধির জন্য আলো পায় না।

মালচিং পদ্ধতিতে করলা চাষ
মালচিং পদ্ধতিতে করলা চাষ

– জৈব মালচ: খড়, শুকনো পাতা, নারিকেলের ছোবল ইত্যাদি ব্যবহার করা যায়।

৩. মালচ বিছানো:

– পলিথিন মালচ ব্যবহারের ক্ষেত্রে, পলিথিন শিটটি বিছিয়ে নিন এবং প্রয়োজনীয়তা অনুযায়ী ছিদ্র করুন, যেখানে করলার বীজ বা চারা রোপণ করা হবে।
– জৈব মালচ ব্যবহারের ক্ষেত্রে, মাটির উপরে পুরুভাবে মালচ বিছিয়ে দিন।

৪. চারা রোপণ:

– মালচ বিছানোর পর, নির্দিষ্ট দূরত্ব বজায় রেখে করলার চারা রোপণ করুন। পলিথিন মালচের ক্ষেত্রে ছিদ্রের মধ্যে চারা লাগান।

৫. পানি সেচ:

– রোপণের পর, পর্যাপ্ত পানি সেচ দিতে হবে। মালচ ব্যবহারের কারণে মাটি দীর্ঘক্ষণ আর্দ্র থাকবে, ফলে কম পানি সেচ প্রয়োজন হবে।

৬. রক্ষণাবেক্ষণ:

– নিয়মিতভাবে জমি পরীক্ষা করুন এবং প্রয়োজনীয় সার ও পানির পরিমাণ বজায় রাখুন।
– আগাছা নিয়ন্ত্রণে মালচ কার্যকরভাবে কাজ করবে, তবে মাঝে মাঝে জমি পরিদর্শন করে আগাছা পরিষ্কার করতে হবে।

৭. ফসল সংগ্রহ:

– করলা পরিপক্ক হলে ফসল সংগ্রহ করুন।

এই পদ্ধতি অনুসরণ করলে করলা চাষে ফলন ভালো হবে এবং উৎপাদন খরচও কমবে।

জনপ্রিয় লেখা