Wednesday, 29 May, 2024

সর্বাধিক পঠিত

পুকুরের পানির ঘোলাত্ব সমস্যা এবং দূর করার উপায়


Water turbidity

পুকুরের পানি ঘোলা হলে মাছের বিভিন্ন সমস্যার সূত্রপাত হয়। মাছের ঘোলা পানি জনিত সমস্যার মধ্যে রয়েছে, মাছ খাদ্য কম খায়, মাছের দৃষ্টি শক্তি কমে যায়।

এছাড়া পানি ঘোলা হলে পানিতে সূর্যের আলো পৌছাতে পারে না তাই প্রাকৃতিক খাদ্য তৈরি হতে পারে না, প্রজনন সমস্য হয়, বিভিন্ন ক্ষত রোগ দেখা দেয় এবং মাছ বৃদ্ধি পায় না।

ঘোলা পানিতে মাছের ফুলকা ক্ষতিগ্রস্ত হয়, ফুলকায় মাটি প্রবেশ করে মাছ মারা যেতে পারে।

আরো পড়ুন
বায়োফ্লকের পানি তৈরি করার পদ্ধতি বা নিয়ম
বায়োফ্লক ট্যাংক

বায়োফ্লকে পানি তৈরি বায়োফ্লক মাছ চাষের অন্যতম প্রধান কাজ। বায়োফ্লক শুধুমাত্র ফ্লক তৈরি করতে না পেরে অনেকে ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছেন। Read more

কাপ্তাই হ্রদে মাছের প্রজনন রক্ষার্থে তিন মাস মাছ শিকার বন্ধ

কাপ্তাই হ্রদে কার্প জাতীয় মাছের প্রজনন ও বংশবৃদ্ধির উন্মুক্ত স্থান। প্রজনন ক্ষেত্র বাচানোর জন্য রাঙ্গামাটির কাপ্তাই হ্রদে ২৫ এপ্রিল থেকে Read more

পুকুরের পানি ঘোলাত্ব (water turbidity) হয় কেন ?

পুকুরে পানি দুইভাবে ঘোলা হতে পারে। পানিতে অতিরিক্ত কাদা বা মাটি থাকলে পানি ঘোলা হয়ে যায়। আবার পুকুরে অতিরিক্ত প্ল্যাংকটন উৎপন্ন হলেও পুকুরের পানি ঘোলা হতে দেখা যায়।

পুকুরের পানি অধিক ঘোলা হলে পানিতে পর্যাপ্ত সূর্যের আলো প্রবেশ করতে পারে না এবং এ কারনে পুকুরে পর্যাপ্ত প্রাকৃতিক খাবার তৈরি হতে পারে না।

এ ছাড়াও পানি অধিক ঘোলা হলে মাছের ফুলকার উপরেও ঘোলা পানির কনা গুলো জমতে থাকে। ফলে মাছের নিঃশ্বাস নিতে কষ্ট হয় এবং বেশি খারাপ অবস্থায় মাছের মৃত্যু হতে পারে।

পুকুরের পানির ঘোলাত্ব (Water turbidity) দূর করার উপায়

প্রতি শতাংশে ৮০ থেকে ১৬০ গ্রাম ফিটকিরি দিলে পানির ঘোলাত্ব কমে।

পুকুর তৈরির সময় জৈবসার বেশি দিলে পানির ঘোলাত্ব সমস্যা থেকে রক্ষা পাওয়া যায়।

পানিতে কলাপাতা ও কুচরিপানা রাখলেও পানির ঘোলাত্ব কমে।

এছাড়া প্রতি শতাংশে ১-২ কেজি চুন অথবা জিপসাম প্রয়োগ করলে পানির ঘোলাত্ব কমে।

0 comments on “পুকুরের পানির ঘোলাত্ব সমস্যা এবং দূর করার উপায়

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *