Wednesday, 29 May, 2024

সর্বাধিক পঠিত

অতিরিক্ত তাপমাত্রায় মাছ চাষে করনীয়


পুকুরে প্রাকৃতিক খাবার তৈরি

তাপমাত্রা মাছ চাষের একটি গুরত্বপূর্ন বিষয়। মাছ চাষে তাপমাত্রার যথেষ্ট প্রভাব রয়েছে।  জুন – আগস্ট মাসে রোদের প্রভাবে পানির তাপমাত্রা ভয়ঙ্কর ভাবে বেড়ে গিয়ে মাছ চাষে ব্যাহত করে।

অগভীর পুকুরের পানির তাপমাত্রা খুব সহজেই বৃদ্ধি পায় এবং এতে পানির অক্সিজেন ধারণ ক্ষমতা কমে যায়।

চৈত্র -বৈশাখ মাসের দিকে এ সমস্যা বেশি দেখা যায়।

আরো পড়ুন
বায়োফ্লকের পানি তৈরি করার পদ্ধতি বা নিয়ম
বায়োফ্লক ট্যাংক

বায়োফ্লকে পানি তৈরি বায়োফ্লক মাছ চাষের অন্যতম প্রধান কাজ। বায়োফ্লক শুধুমাত্র ফ্লক তৈরি করতে না পেরে অনেকে ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছেন। Read more

চলমান তাপ প্রবাহে হাঁস-মুরগি ও প্রাণিসম্পদ ব্যবস্থাপনা
চলমান তাপ প্রবাহে হাঁস-মুরগি ও প্রাণিসম্পদ ব্যবস্থাপনা

তীব্র তাপপ্রবাহ হাঁস- মুরগি ও গবাদিপ্রাণির দেহে নানা ধরনের প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ পীড়ন (স্ট্রেস) তৈরি করে, ফলে হাঁস-মুরগি ও গবাদিপ্রাণির Read more

পানির তাপমাত্রা বেড়ে গেলে করনীয়

পানির তাপমাত্রা অধিক বৃদ্ধি পেলে পুকুরে বাহির থেকে ঠাণ্ডা পানি সরবরাহ করতে হবে।

পুকুরের তলদেশে সুবিধাজনক স্থানে তলার কাদা উঠিয়ে কিছু কিছু গভীর অংশ সৃষ্টি করতে হবে যেন পানি মাত্রাতিরিক্ত গরম হয়ে গেলে মাছ গভীর স্থানে গিয়ে আশ্রয় নিতে পারে।

পুকুরের এক কোনায় অল্প গাছপালা থাকলে অধিক গরমে মাছ গাছের ছায়ায় আশ্রয় নিতে পারে, তবে খেয়াল রাখতে হবে পাড়ের গাছপালার জন্য যেন পুকুরের পানিতে সূর্যালোক প্রবেশে কোন বাঁধা তৈরি না হয়।

এছাড়া পানি পরিবর্তনের সুযোগ থাকলে অধিক গরম পানি পরিবর্তন করে ঠান্ডা পানি পুকুরে প্রবেশ করাতে হবে।

নিয়মিত পুকুরে চুন প্রয়োগে পানির তাপমাত্রা ধারন ক্ষমতা বেড়ে যায়। পানি সহজে ঠান্ডা ও গরম হয় না।

গ্রীষ্মকালে কৃত্রিমভাবে সেড তৈরী করে তাপের স্তরীয় বিন্যাস প্রতিরোধ করে তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রণ করা যায় ।

এয়ারেটর চালনা করেও তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রণ করা যায় ।

মাছ চাষে তাপমাত্রার প্রভাব

মাছের বৃদ্ধিঃ পানির মাছের বৃদ্ধি সাধারণত ২৫ -৩২ ডিগ্রি সেন্টিগ্রেড তাপমাত্রায় ভাল হয়। তাপমাত্রার সাথে মাছের বৃদ্ধিতে নিচের সচিত্র বর্ননা দেখলে বিষয় টা পরিস্কার হয়।

Growth -Temp
Growth -Temp

মাছের জৈবিক ও রাসায়নিক কার্যাবলীঃ

তাপমাত্রার দ্বারা জলাশয়ে মাছের জৈবিক ও রাসায়নিক কার্যাবলী প্রভাবিত হয় । সাধারণত প্রতি ১০ ডিগ্রি সেন্টিগ্রেড তাপমাত্রা বৃদ্ধির ফলে পুকুরে জৈবিক ও রাসায়নিক কার্যাবলীর মাত্রা দ্বিগুন বৃদ্ধি পায় । তবে ৩৭ ডিগ্রি বা তার বেশি হলে এই কার্যক্রম ব্যহত হয়।

মাছের প্রজননঃ

মাছের প্রজনন  তাপমাত্রার রেঞ্জের উপর নির্ভরশীল । উদাহরণস্বরুপ  Tilapia mossambica গ্রীষ্মমন্ডলীয় অঞ্চলের মাছ । এ মাছ ৮.৯ ডিগ্রি সেন্টিগ্রেড তাপমাত্রার নীচে বৃদ্ধি হয় না । এ মাছের প্রজননের অনুকূল তাপমাত্রা হলো ২১ – ২৩ ডিগ্রি সেন্টিগ্রেড। তবে ৩৭ ডিগ্রি বা তার বেশি হলে এই কার্যক্রম ব্যহত হয়।

0 comments on “অতিরিক্ত তাপমাত্রায় মাছ চাষে করনীয়

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *